জাতিসত্ত্বা আগে না অর্থ আগে ?


ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে বাঙালি জাতি প্রাণপণে লড়াই চালিয়েছিল। তাদের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামে ভীত নড়ে গিয়েছিল ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদের।

আমরা বর্তমানে স্বাধীন দেশে বসবাস করি। কিন্তু প্রকৃত স্বাধীনতা কী আমরা বাঙালিরা পেয়েছি? না, আমরা বাঙালিরা পায়নি।

আজ বাঙালির ওপর থাবা বসাচ্ছে হিন্দি সাম্রাজ্যবাদবাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে বাঙালিরা বাংলা ভাষা বললে একদল বিহারী বাংলাদেশী বলে এপারের বাঙালিদের অপমান করছেবাংলাদেশের সাথে এপারের বাঙালিদের  রক্তের সম্পর্ক রয়েছেতাদের ভাষা আর আমাদের ভাষা এক, সংস্কৃতি এক, জাতি একপশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরার সাথে বাংলাদেশের যে বন্ধুত্ব তা খর্ব করতে চাইছে হিন্দি সাম্রাজ্যবাদএর দায় শুধু ওদেরই নয়আমাদের বাংলাতে থাকা কয়েকজন কুলাঙ্গারসম অশিক্ষিত বাঙালিরা বাংলা ভাষাকে বিকিয়ে দিচ্ছেনিজ জাতিসত্ত্বাকে বিক্রি করে দিচ্ছে

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব  দুর্গাপূজা যেখানে  বাঙালিরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে বিশাল পূজোর আয়োজন করেএই উৎসবে বাঙালির ভাষা, সংস্কৃতি, ঐতিহ্যের প্রসার ঘটেবর্তমানে খানকয়েক অবাঙালি বাংলাতে এসে  অবাংলা ভাষাতে পূজোর স্পনসর করে দুর্গাপূজাতে  বাঙালিয়ানা শেষ করে দিতে চাইছেআর একদল মূর্খ বাঙালি সেগুলো মেনে নিচ্ছে৷ বাংলাতে বাংলাভাষাই অবাঙালি কোম্পানি স্পনসর করুক সেকথা তাঁরা ভুলে যানদুটাকার জন্য এঁরা বাঙালি জাতিয়তাবাদকে বিকিয়ে দিচ্ছে

ঠিক এমনটাই ঘটলো  ২০১৮ তেসন্তোষপুর লেকপল্লীর দুর্গাপূজাতে জে.কে মশালা নামের একটি গুজরাটি কোম্পানী স্পনসর করতে চলেছেজে.কে মশালা হলুদের থিম বানানোর জন্য চুক্তিবদ্ধ সন্তোষপুর লেকপল্লীর সাথেকোম্পানিটি হলদি কা পান্ডেল শিরোনামের ব্যানার লাগিয়ে  দুর্গাপূজার আয়োজন করতে চলেছেকিন্তু সন্তোষপুর লেকপল্লীর মানুষেরা বাঙালি হয়েও একবারও প্রতিবাদ করেনি বাংলাতে কেন নাম দেওয়া হলো না হলুদের মন্ডপএদের কাছে অর্থটাই বড়ো হলো, ভাষাটা বড়ো হলোনাঅর্থই যদি সব হয়, তাহলে কেন এ দূর্গাপূজোর আয়োজন? অর্থ দরকার হলে পরে গিয়ে ব্যবসা করুনতাই বলে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবে অবাঙালির কাছে বাঙালি মানসিকতাকে বিসর্জন দিয়ে দেবেন না 

বাঙালি সাবধান হোননাহলে সেইদিন আর বেশি দূরে নয় যেদিন আমরা বাঙালি হয়েও এপার বাংলার মাটিতে বাংলাভাষা বলতে পারবো নানিজের মায়ের ভাষার প্রতি এতো অনীহা কেন? আপনারা ভুলে যাবেন না " নির্গুণ স্বজন শ্রেয়, পর পর সদা।" নিজের ঘর চাইতে বড়ো কিছু নেইপর সবসময় পরই থাকেঅতএব পরকে আপন করতে যেওনা

বাঙালি তাঁর নিজস্ব ভাষার অধিকার ফিরে পাকশিরায় শিরায় জেগে উঠুক উত্তপ্ত বাঙালির রক্তহলদে কা পান্ডেল থেকে মন্ডপের নাম হোক হলুদের মন্ডপঅসংখ্য বাঙালি পথে নামছে, নেমে দাবী করছেতবুও ঘুমন্ত বাঙালির ঘুম ভাঙ্গছে নাএবার সময় এসে গেছে বাঙালির জেগে ওঠারজাগো বাঙালি জাগোওঠো, জাগো, নিজের প্রাপ্য বুঝে নাওহোক লড়াই, হোক প্রতিবাদবাঙালি আপনার নিজের ভাষার অধিকার ছিনিয়ে নাও  
                                 সংবাদদাতা- বাংলা পক্ষের কৌশিক ব্যানার্জী 
                                                          লেখায়-সুমিত দে
                                  

2 comments:

  1. khali uskaani
    lokjon ki etoi boka je kichu matha khrap kaj kormo nei tader kathai nachbe

    ReplyDelete
    Replies
    1. আপনার হয়তো জাতিসত্ত্বা নিয়ে কোনো মাথাব্যাথা নেই তাই হয়তো এমনটা বলতে পারছেন। লোকজন তো বোকামি অবশ্যই করছে। নিজের জাতিসত্ত্বাকে অন্যের কাছে বিকিয়ে দেওয়া নিছক নির্বোধের কাজ।

      Delete