Header Ads

পৃথিবীর প্রথম বাংলা নাটক মঞ্চস্থ হয় এক রুশ ব্যক্তির হাত ধরে


বাংলার এক অজানা ইতিহাস। এক রাশিয়ান ভবঘুরে আয়োজন করলেন বাংলা নাটকের। সালটা ১৭৯৫। তারিখ ২৭ শে নভেম্বর৷ সেই নাটকেই সর্বপ্রথম জনসাধারণের জন্য পিয়ানোর আত্মপ্রকাশ ঘটে। ঐ রুশ ভবঘুরের নাম গেরাসিম স্তেপানোভিচ লেবেদেফ। তাঁর উদ্যোগেই মঞ্চস্থ হয় প্রথম বাংলা নাটক। গেরাসিম স্তেপানোভিচ লেবেদেফ ছিলেন একজন রুশ অভিযাত্রী, ভাষাবিদ, অনুবাদক, বেহালা বাদক, সংগীতজ্ঞ ও লেখক। এছাড়াও তিনি ছিলেন ভারয়তত্ত্ব বিষয়ের পন্ডিত। 


প্রথম বাংলা নাটকের রচয়িতা ও পরিচালক ছিলেন লেবেদেফ। তিনি কলকাতার বুকে গড়ে তোলেন ঐতিহ্যবাহী 'দ্য বেঙ্গলি থিয়েটার'। দ্য ডিজগুয়েজ এর অনুবাদে প্রথম অনুদিত বাংলা নাটকটির নাম ছিল 'কাল্পনিক সংবদল'৷ এই নাটকে ভারতচন্দ্র রায়ের বিদ্যাসুন্দর কাব্যের কয়েকটি ছত্র সুরারোপ করে তিনি সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেন৷ একজন রুশ হিসেবে বাংলা নাটক নির্দেশনা সত্যিই তাজ্জব ব্যাপার। তার থেকেও বড় কথা আজ থেকে দুই শতাব্দী পূর্বে তিনি বাংলা নাটক নির্দেশনা করেছিলেন৷ একজন রুশ ব্যক্তি হিসেবে বাংলা ভাষা শিখে সেই ভাষাতে নাটক পরিচালনা করা মোটেও সহজসাধ্য ব্যাপার নয়। 

১৭৯৫ সাল, কলকাতা শহরের বয়স সবে তখন প্রায় একশো বছর৷ নগরায়নের পথে কলকাতা একটু একটু করে এগোচ্ছে। পুরো কলকাতা তখনও অর্ধেক গ্রাম ছিল। ধান ক্ষেত, জলাভূমি, সরু রাস্তা, মেঠো পথ, বহু জায়গা বিদ্যুৎহীন, সংবাদ ছাপার অনুন্নত প্রযুক্তি ও বেহাল যোগাযোগ ব্যবস্থা কলকাতার জনজীবনকে অনেকটা সমস্যায় ফেলতো। তাছাড়াও শহরে রোগ-বিসুখ তো লেগেই আছে৷ আর শহরে ইউরোপীয়  বাবুদের আগমন। কলকাতার পরিবেশ, জল-আবহাওয়া ইউরোপের থেকে অনেক আলাদা৷ ফলে ইউরোপীয় বাবুদের মানিয়ে নিতে প্রচন্ড কষ্ট হতো ঠিকই তবে তাদের আভিজাত্যপূর্ণ জীবনযাপন সবকিছু মানিয়ে নিতো৷ ব্রিটিশরা সপ্তাহের শেষে অবসরে বিনোদন উপভোগের জন্য 'চৌরঙ্গী থিয়েটার' গড়ে তোলে। সেখানে ব্রিটিশরা সুরা পান করতে করতে বিদেশি নাটক দেখতো। 

বিদেশিদের জন্য তো বিনোদনের উপায় ছিল কিন্তু বাঙালিদের সেই উপায় কোথায়? 'চৌরঙ্গী থিয়েটারে' বিদেশি নাটক হয়, সেখানে বাংলা নাটক হয়না। কোথা থেকে হবে, বাংলা নাটক করানোর ক্ষমতাই তো কারোর ছিল না। বাংলা গদ্যই তখন অনেকে লিখতে পারেন না, আর নাটক তো বহুদূর।  বাঙালিদের জন্য বাংলা নাটক তাহলে কবে হবে? এমনটাই চিন্তা করেন রুশ ব্যক্তি লেবেদেফ। বাংলা ভাষায় তিনিই প্রথম নাট্যাভিনয় শুরু করলেন৷ 

১৭৮৫ সালে লেবেদেফ সূদুর রাশিয়া থেকে কলকাতা ভ্রমণ করতে এলেন৷ কলকাতা শহরকে বাংলা ভাষার জন্যই তিনি ভালোবাসতেন। তাঁর বহুদিন থেকেই শখ ছিল বাংলা ভাষা শেখার৷ কলকাতায় আসার পর তিনি অল্প সময়ের মধ্যেই বাংলা ভাষা শিখে বাংলা ভাষাতে সাবলীল হয়ে উঠলেন। দশ বছর যাবৎ কলকাতায় থেকে বাঙালি পন্ডিত গোলকনাথ দাসের নিকট বাংলা ভাষা অধ্যয়ন করেন। বাংলা শেখার পরই বাংলাতে নাটক নির্দেশনা করার কথা তিনি চিন্তা করতে থাকেন। অবশেষে ১৭৯৫ সালের ২৭ শে নভেম্বর কলকাতার ২৫ নম্বর ডোমোতলা যা আজকের এজরা ঘাট, এখানেই তাঁর নির্দেশনাতে অভিনীত হলো বাংলার প্রথম নাটক 'কাল্পনিক সংবদল'। এই নাটকের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠিত হলো বেঙ্গলি থিয়েটার। এই থিয়েটারের মাধ্যমে বঙ্গনারীদের থিয়েটারে আগমন হয়। গোলকনাথের সহয়তায় তিন বঙ্গনারীকে দিয়ে লেবেদেফ নাটকটি করিয়েছিলেন৷ 

২৭ শে নভেম্বর তারিখকে বাংলা নাট্যদিবসও বলা চলে। কারণ এই দিনেই প্রথম বাংলা নাটক মঞ্চস্থ হয়। সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হলো পৃথিবীর প্রথম বাংলা নাটক কোনো বাঙালির দ্বারা নয়, একজন রুশ ব্যক্তির দ্বারা মঞ্চস্থ হয়।


তথ্যসূত্র- অবসর ব্লগ, রাশিয়ান আর্কাইভ

No comments