ছবির টাইপোগ্রাফি পোস্টারে সাড়া জাগিয়ে সম্পর্কের গল্পের বাঁধনে সাক্ষী রাখতে হাজির টলিউডের নবাগত পরিচালক দ্বীপাঞ্জন রায়

বৈবাহিক জীবনের চিরাচরিত সমস্যা নিয়ে ছবি বানালেন নবাগত পরিচালক দ্বীপাঞ্জন রায়। এ.ডি.ডি প্রোডাকশনের ব্যানারে রৌনক রায়ের প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে এ ছবি। অবশেষে মুক্তি পেল এই ছবির টাইপোগ্রাফি পোস্টার। ছবির নাম "মালাবদল"। যে নামের পিছনেই লুকিয়ে আছে বিবাহের গন্ধ। 



ছবির মুখ্য চরিত্র বাদল ও পারমিতা। যাদের ওপর ভর করেই এগোবে ছবির চিত্রনাট্য। বাদল ও পারমিতার বিবাহ জীবনের একবছর পার। আর একবছরের ছেদ ঘটতে না ঘটতেই শুরু ডামাডোল। একে ওপরের প্রতি ভালোবাসা থাকা সত্ত্বেও কেমন যেন অগোছালো হয়ে ওঠে দুজনে। একে ওপরের প্রতি যেন অভিযোগ লেগেই থাকে। সারাক্ষণ খুনসুটি আর ঝগড়া নিয়ে এগোতে থাকে তাদের দিনগুলো। বাদল ও পারমিতা একে ওপরের জন্য প্রচন্ড অতীষ্ঠ। বুঝতে পারছে না এগুলোর সমাধান কী। এরপর তারা দুজনে একে অন্যের অভিযোগ পাঁচটি অধ্যায়ে সংখ্যায় ভাগ করে নেয়। তারপর কী হয়? এর উত্তর ছবির মধ্যেই মজুত রয়েছে। 

বৈবাহিক জীবনে ঝগড়া বা খুনসুটি নতুন কোনো ঘটনা নয়। সংসার মানেই সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, অভিমান সব থাকবে কারণ এগুলো না থাকলে জীবনের মানে খুঁজে পাওয়া যায়না। বাদল ও পারমিতার সংসারও আমাদের সকল সংসারগুলোর মতোই। তবে যাইহোক বাদল ও পারমিতার দুষ্টু-মিষ্টি এমন প্রেম আর খুনসুটি দেখার মতো। সেই সুযোগই করে দিচ্ছেন পরিচালক দ্বীপাঞ্জন রায় তার প্রথম ছবি "মালাবদল" এর মাধ্যমে।

ছবিতে অভিনয় করেছেন অর্ক রায়, রূপলেখা মৈত্র, সুরজিৎ মাইতি ও আরো অনেকে। ছবির সহযোগী মুখ্য পরিচালনায় সুদীপ্ত ভট্টাচার্য। অন্যান্য সহযোগী পরিচালনায় অনীক দে, রোহিণী রায় চৌধুরী। ছবির প্রোডাকশন ম্যানাজার দীপ চক্রবর্তী। ছবিতে সংগীত পরিচালনা করেছেন শুভঙ্কর চ্যাটার্জি। ছবিতে ব্যবহৃত গানগুলোতে কণ্ঠ দিয়েছেন প্রীতম দাস ও সীমরন সরকার। সিনেমাটোগ্রাফির দায়িত্বে কাজ করেছেন রোহিত সরকার ও রৌনক রায়। আর্ট পরিচালনায় সৈকত দাস। ছবিতে ক্রিয়েটিভ ডিজাইন করেছেন আত্রেয়ী রায়। 

ছবিতে নবাগত পরিচালক দ্বীপাঞ্জন রায়। 

নবাগত পরিচালক দ্বীপাঞ্জন রায়ের প্রথম ছবি "মালাবদল" সম্পর্কের বাঁধনকে সাক্ষী রেখে কতটা দর্শকদের মন জয় করবে তা সময়ই বলবে। জীবনের প্রথম ছবি নিয়ে তুমুল ব্যস্ততার মাঝে দিন কাটছে দীপাঞ্জন রায়ের। তার হাতে এখন একটা বড়ো দায়িত্ব দর্শক মাতানো। তিনি দর্শকদের নতুন গল্পের স্বাদ দিতে নিয়ে আসছেন এই ছবি। 

প্রতিবেদন-সুমিত দে

1 comment: